1. dailydeshbidesh@gmail.com : admin :
  2. deshbiseh@gmail.com : Adbul Wahid : Adbul Wahid
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৯:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
জগন্নাথপুর সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের পুরাতন মালামাল কম দামে গোপনে বিক্রি করায় জনতা কর্তৃক আটক।। জগনাথপুরে সাংবাদিকদের সাথে উপজেলা প্রশাসনের প্রেস ব্রিফিং জগন্নাথপুরে পেক আইডি দিয়ে সংক্রান্ত পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপ-প্রচারে এলাকাবাসীর নিন্দা , থানায় জিডি দায়ের ।। জগন্নাথপুরের হবিবপুরে ভূমি সংক্রান্ত বিষয়কে কেন্দ্র করে গ্রামের মান ক্ষুন্ন করায় প্রতিবাদ সভা।। যুক্তরাজ্য প্রবাসী কে মোবাইল ফোনে হুমকি দিল জার্মান প্রবাসী জগন্নাথপুরে যুক্তরাজ্য প্রবাসীকে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে হয়রানি, এলাকাবাসীর নিন্দা।। জগন্নাথপুরে পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেফতার- ৫ জগন্নাথপুরে মিথ্যা মামলাসহ বিভিন্নভাবে হয়রানির প্রতিবাদে গ্রামবাসীর তীব্র নিন্দার ঝড় # জগনাথপুরে মাদ্রাসার ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠান সম্পন্ন

হারিয়ে যাচ্ছে আমাদের মিঠা পানির দেশীয় প্রজাতির মাছ

  • আপডেটের সময় : সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১২০

সুরুজ্জামান শিমুল,সুনামগন্জ

হাওরাঞ্চলের প্রবেশপথ বলে খ্যাত কিশোরগঞ্জের ভৈরবে বিগত কয়েক বছরে আশঙ্কাজনক হারে কমে গেছে আমাদের মিঠাপানির দেশীয় প্রজাতির মাছ।
জনসংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে চাহিদা বাড়লেও ক্রমেই কমে আসছে মাছের জোগান। ফলে বাজারে মাছের দাম চলে যাচ্ছে ক্রেতা-সাধারণের নাগালের বাইরে। তাই ‘মাছে ভাতে বাঙালি’ বহুল প্রচলিত প্রবাদটি কেবল জায়গা করে নিচ্ছে বইয়ের পাতায়।
অন্যদিকে, এ অঞ্চলে বংশ পরম্পরায় মাছ শিকারের ওপর নির্ভরশীল। মৎস্যজীবীরা প্রয়োজনীয় মৎস্য আহরণ করতে না পারায় বাধ্য হচ্ছে মানবেতর জীবনযাপনে।
তবে স্থানীয় মৎস্য বিভাগের অভিমত, মুক্ত জলাশয় অর্থাৎ নদী-নালার মৎস্য সম্পদ কমে এলেও বৃদ্ধি পাচ্ছে বদ্ধ জলাশয়ে মাছের আবাদ। জিহ্বার স্বাদ কমে এলেও পুষ্টির কোনো ঘাটতি হবে না এখানকার অধিবাসীদের।
কিশোরগঞ্জের বিশাল হাওরাঞ্চলসহ ভৈরবে এক সময় মাছের ভাণ্ডার বলে পরিচিত ছিল। ভৈরবসহ আশে পাশে বড় নদ-নদী ব্রহ্মপুত্র, মেঘনা, কালী,ও শীতলপাটিসহ অসংখ্য হাওর-বাওর, নালা, খাল-বিলে তারা বাইম, কৈলাশ, কালী বাউশ, চিতল, নানীন, ভাচাঁ, গাওরা, গাগলা, পাবদা, বাগাই, রিডা, পুমা, লাচু, টেকা, কাজলী, বেদী বা মিনি, কাদলা, কাইক্কা, পাঙাশ, মৃগেল, শিং, মাগুর, কৈ, চান্দা, বাইল্লা, টেংরা, বাতাসি বা আলনি মাছ, বইছা, গুতুম, চিকরা, চাপিলা, রানী বা রানদী, ভূম মাছ, আকস মাছ, পান মাছ, মাসুল মাছ, কোরাল মাছ, তিতপুঁটি, কাচকিসহ ২৬০ প্রজাতির মিঠাপানির মাছের সহজ লভ্যতা ও প্রাচুর্যতা ছিল। খেতে খুব স্বাদ হওয়ায় এখানকার মাছের কদর ছিল পুরো দেশ ছাড়াও দেশের বাইরে। কিন্তু যতই সময় পার হচ্ছে এখানকার মাছের ভাণ্ডারের শূন্যতাও দেখা দিচ্ছে। এরইমধ্যে অনেক প্রজাতির মাছ বিলুপ্ত হয়ে গেছে। অনেকগুলো আবার প্রায় বিলুপ্তির পথে।

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Comments are closed.

এই ধরনের আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021 দৈনিক দেশ বিদেশ
Design and developed By: Syl Service BD